করোনায় দেশ প্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়েই জীবন বাজি রেখে কাজ করছে মানিকগঞ্জ জেলা পুলিশ

মানিকগঞ্জ : করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে জীবন বাজি রেখে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন জেলা পুলিশের সদস্যরা। করোনা প্রতিরোধে বিদেশফেরত ব্যক্তিদের হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করা, সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখা, সড়ক-মহাসড়ক ও ফেরি ঘাটে কঠোর অবস্থান, নিয়মিত পুলিশি চেকপোস্ট, পুলিশি টহল কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে পুলিশ। এছাড়াও করোনা ভাইরাস সচেতনতায় স্বাস্থ্য সুরক্ষা সরঞ্জাম, স্যানিটাইজার ও কর্মহীন দু:স্থদের মাঝে খাদ্য সামগ্রীও বিতরণ করেছে জেলা পুলিশ।

জেলায় বর্তমানে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৫৫৫ জন, এদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৩৯৬ জন উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন ১৮ জন এবং আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন ৫জন। জেলায় পুলিশের ১০৬৪ জন সদস্যর মধ্যে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৭ জন। এদের মধ্যে একজন অফিসিয়াল স্টাফ। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এক পুলিশ সদস্য মৃত্যু বরন করেছেন ।

পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম জানান, জেলা পুলিশের প্রতিটি সদস্যই নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। জেলায় ৩২৪৬ জন বিদেশ ফেরত ব্যক্তিদের হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করা হয়েছে। সেই সাথে এদের মধ্যে প্রায় ৪০০ ব্যক্তি পালিয়ে বেড়াচ্ছিল। তাদেরকেও খুজে বের করে হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করা হয়েছে।

শুরু থেকেই জেলার গুরুত্বপূর্ণ ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক ও পাটুরিয়া ফেরি ঘাটে পুলিশ সর্বোচ্চ কঠোর অবস্থানে ছিল। এছাড়াও জেলার অভ্যন্তরণীন সড়ক এবং জেলা উপজেলার প্রবেশদ্বারগুলোতে নিয়মিত চেকপোস্ট, অস্থায়ী বাঁশকল স্থাপন করে যানবাহন ও জনসাধারণের অবাধ যাতায়াত বন্ধ রাখা হয়েছিল। পাশাপাশি জেলার সকল হাট-বাজারগুলোকে উন্মুক্তস্থানে সরিয়ে সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিত করা হয়েছে।
তিনি আরো জানান, করোনার প্রভাবে কর্মহীন হয়ে পড়া ৩ হাজার দু:স্থ পুরিবারের মাঝে চাল, ডাল, আলু, লবন, তেল, পেয়াজ, চিনি বিতরণ করা হয়েছে। সেই সাথে তার ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে রমজান মাসে সাড়ে ৫০০ মানুষের মাঝে সেহরী বিতরণ করা হয়েছে।

পুলিশ সুপার বলেন, করোনা ভাইরাসে জেলার প্রতিটি পুলিশ সদস্য মানবিক পুলিশ হিসেবে কাজ করে যাচ্ছে। মনোবল চাঙ্গা রেখেই শুরু থেকে করোনা যুদ্ধে আমরা কাজ কওে যাচ্ছি। এসময় তিনি সমাজের সর্বস্তরের মানুষদের স্বাস্থবিধি মেনে চলার এবং সকলকে মানবিক আচরণ করতে অনুরোধ জানান।

Facebook Comments
ভাগ