ময়লার ভাগারের দুর্গন্ধে স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে মানিকগঞ্জ পৌরবাসী

মানিকগঞ্জ : মানিকগঞ্জ পৌর এলাকার বাসাবাড়িরসহ বাজার ঘাটের ময়লা আবর্জনা ফেলার ডাম্পিং গ্রাউন্ড (ময়লা ফেলার ভাগার) থাকলেও সেখানে তা ফেলা হচ্ছে না। যত্রতত্র ময়লা ফেলার কারণে সৃষ্টি হচ্ছে আবর্জনার ভাগার, ছড়াচ্ছে দুর্গন্ধ । এতে স্বাস্থ্য ঝুঁকিসহ দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে পৌরবাসীকে। তবে পৌরসভার দাবী নির্দিষ্ট সময়েই নিয়মিত ময়লা আবর্জনা পরিষ্কার করছে।

মঙ্গলবার(৯জুন) সকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, পৌর এলাকার দুধবাজার চাউল মার্কেটের পাশে,লঞ্চঘাটসহ কিছু কিছু জায়গায় ময়লা ফেলার অস্থায়ী ডাম থাকার পরেও ময়লা আবর্জনা মাটিতে পড়ে আছে। আবার কোনো কোনো স্থানে ডাম না থাকায় রাস্তার পাশেই ময়লা আবর্জনা ফেলে রাখা হয়েছে। এসব ময়লা আবর্জনা নির্দিষ্ট সময়ে না সরানোর কারণে দূর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ছে।

মানিকগঞ্জ শহরের দুধবাজার এলাকার আলমগীর হোসেন বলেন, আমাদের দুধবাজারে অবস্থিত চাউলের মার্কেটের কাছে ময়লা ফেলার জন্য নির্দিষ্ট স্থান নেই। এ কারণে ময়লা রাস্তার পাশে রাখা হয়। কিন্তু সেখান থেকে পৌরসভার শ্রমিকরা ময়লা আবর্জনা পরিস্কার না করার কারনে আবর্জনার ভাগারের সৃষ্টি হয়েছে এবং তা থেকে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে । এছাড়া এখানে একটি টিউবওয়েল রয়েছে যা থেকে এই এলাকার অনেকেই খাওয়ার পানি নেন । বর্তমানে পানি নিতে ঘেন্যা করে ।

কালাচাঁদ নামের এক মুদি ব্যবসায়ী বলেন, গন্ধের কথা পৌর কর্তৃপক্ষকে একাধিকবার জানানো হয়েছে। কিন্তু তারা ময়লা আবর্জনা পরিষ্কার করছে না।

আবর্জনার দুর্গন্ধে মানবদেহে  স্বাস্থ্য ঝুকি কতটুকু এমন প্রশ্নের উত্তরে মানিকগঞ্জ সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. লুৎফর রহমান জানান, আবর্জনার দুর্গন্ধ থেকে মানবদেহের স্বাস্থ্য ঝুঁকি রয়েছে । এছাড়া আবর্জনার স্থান থেকে সৃষ্ট মশার মাধ্যমে ডায়রিয়া, আমাশয় জন্ডিসসহ মশাবাহিত নানান রোগের সৃষ্টি হতেপারে  ।

মানিকগঞ্জ পৌর কার্যালয় সূত্র জানায়, পৌর এলাকার বাসা বাড়ির ময়লা আবর্জনা পরিষ্কার রাখতে শ্রমিক রয়েছে ৫৩ জন, সুইপার ৩৬জন ও ডোম রয়েছে একজন। এছাড়া ময়লা আবর্জনা নির্দিষ্ট স্থানে নিতে তিনটি ট্রাক ও ১৩টি ছোটো ভ্যানগাড়ি রয়েছে।

মানিকগঞ্জ পৌরসভার মেয়র গাজী কামরুলহুদা সেলিম বলেন, শহর পরিস্কার পরিছন্ন রাখতে বাসাবাড়ির ময়লা আবর্জনা এক জায়গায় রাখতে বিভিন্ন এলাকায় ডাম বসানো হয়েছে। এতে ভাল সুফল পাওয়া গেছে। তবে লোকবল ও যানবাহন কম থাকায় মাঝে মধ্যে আমাদের হিমশিম খেতে হয়। তবে কোনো এলাকায় ময়লা আবর্জনা থাকলে আমাদের ফোন করলে দ্রুত সেখানকার ময়লা পরিষ্কার করে দেওয়া হয়।

Facebook Comments
ভাগ